ঢাকা ১০:৫৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরিশালে সাংবাদিক এসএম জাকির হোসেনের মায়ের দাফন সম্পন্ন

  • স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট সময় : ০৭:১৮:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩
  • ৯৩ খবরটি দেখা হয়েছে

দৈনিক মতবাদ, দখিনের মুখ ও সাপ্তাহিক ইতিবৃত্তের সম্পাদক, শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ইউরোটেল বিডি অনলাইন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম জাকির হোসেন এবং বরিশাল প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম মুনির হোসেনের মা খালেদা বেগম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭ টায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর। তিনি তিন ছেলে ও পাঁচ কন্যা এবং নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন, গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মরহুম এ্যাডভোকেট নেহাল হোসেনের সহধর্মিণী খালেদা বেগম ১০ সন্তানের জননী। তার দুই ছেলে মুক্তিযুদ্ধকালিন বরিশাল অঞ্চলের সুইসাইডাল স্কোয়ার্ডের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা খালেকুজ্জামান ফারুক ও বরিশাল প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মুনির হোসেন অনেক আগেই মৃত্যুবরণ করেছেন।

খালেদা বেগমের মৃত্যুর খবরে পরিবার, আত্মীয়-স্বজন এবং প্রতিবেশীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মৃত্যুর খবর পেয়ে মরহুমাকে শেষ বিদায় জানাতে নগরীর কলেজ এভিনিউ’র বাসভবনে ছুটে যান বিভিন্ন রাজনৈতিক, সাংবাদিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গণের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। তারা মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

এদিকে, ‘শুক্রবার বাদ জুমা নগরীর গোরস্থান রোড আঞ্জুমান-ই-হেমায়েত-ই ইসলামে মরহুমার নামে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা নামাজে বরিশাল সিটি মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, বরিশাল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস, আওয়ামী লীগ নেতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুব উদ্দিন আহমেদ- বীর বিক্রম, বরিশাল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু, বিসিসি’র প্যানেল মেয়র গাজী নঈমুল হোসেন লিটু ও রফিকুল ইসলাম খোকনসহ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ড কাউন্সিলর, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, সুশীল সমাজ, সামাজিক এবং সাংস্কৃতিক অঙ্গণের ব্যক্তিবর্গ জানাজা নামাজে অংশগ্রহণ করেন।

জানাজা নামাজ শেষে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহŸায়ক (মন্ত্রী), কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র পক্ষে ফুল দিয়ে মরহুমার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে বরিশাল সিটি মেয়র এবং জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে মরহুমার প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হয়।

এরপর মরহুমা খালেদা বেগমকে মুসলিম গোরস্থানে চির নিবরিশাল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক

এসএম জাকির হোসেনের মায়ের ইন্তেকালদ্রায় শায়িত করা হয়েছে। আগামী সোমবার বাদ জোহর মরহুমার রুহের মাগফেরাত কামনায় পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বার্ধক্যজনিত রোগে দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন খালেদা বেগম। সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তাঁর।

খুলনার দাকোপে ভূমিসেবা সপ্তাহ উদযাপন হয়েছে

বরিশালে সাংবাদিক এসএম জাকির হোসেনের মায়ের দাফন সম্পন্ন

আপডেট সময় : ০৭:১৮:০২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩

দৈনিক মতবাদ, দখিনের মুখ ও সাপ্তাহিক ইতিবৃত্তের সম্পাদক, শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত বরিশাল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, মহানগর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ও ইউরোটেল বিডি অনলাইন লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এসএম জাকির হোসেন এবং বরিশাল প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মরহুম মুনির হোসেনের মা খালেদা বেগম ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭ টায় বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৩ বছর। তিনি তিন ছেলে ও পাঁচ কন্যা এবং নাতি-নাতনিসহ অসংখ্য আত্মীয়-স্বজন, গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মরহুম এ্যাডভোকেট নেহাল হোসেনের সহধর্মিণী খালেদা বেগম ১০ সন্তানের জননী। তার দুই ছেলে মুক্তিযুদ্ধকালিন বরিশাল অঞ্চলের সুইসাইডাল স্কোয়ার্ডের সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা খালেকুজ্জামান ফারুক ও বরিশাল প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মুনির হোসেন অনেক আগেই মৃত্যুবরণ করেছেন।

খালেদা বেগমের মৃত্যুর খবরে পরিবার, আত্মীয়-স্বজন এবং প্রতিবেশীদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে। মৃত্যুর খবর পেয়ে মরহুমাকে শেষ বিদায় জানাতে নগরীর কলেজ এভিনিউ’র বাসভবনে ছুটে যান বিভিন্ন রাজনৈতিক, সাংবাদিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক অঙ্গণের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ। তারা মরহুমার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করেন।

এদিকে, ‘শুক্রবার বাদ জুমা নগরীর গোরস্থান রোড আঞ্জুমান-ই-হেমায়েত-ই ইসলামে মরহুমার নামে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা নামাজে বরিশাল সিটি মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আবদুল্লাহ, বরিশাল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এ্যাডভোকেট একেএম জাহাঙ্গীর, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট তালুকদার মো. ইউনুস, আওয়ামী লীগ নেতা ও বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুব উদ্দিন আহমেদ- বীর বিক্রম, বরিশাল সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাইদুর রহমান রিন্টু, বিসিসি’র প্যানেল মেয়র গাজী নঈমুল হোসেন লিটু ও রফিকুল ইসলাম খোকনসহ সিটি করপোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ড কাউন্সিলর, জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, সাংবাদিক, সুশীল সমাজ, সামাজিক এবং সাংস্কৃতিক অঙ্গণের ব্যক্তিবর্গ জানাজা নামাজে অংশগ্রহণ করেন।

জানাজা নামাজ শেষে পার্বত্য শান্তিচুক্তি বাস্তায়ন ও পরিবীক্ষণ কমিটির আহŸায়ক (মন্ত্রী), কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ’র পক্ষে ফুল দিয়ে মরহুমার প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে বরিশাল সিটি মেয়র এবং জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে মরহুমার প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হয়।

এরপর মরহুমা খালেদা বেগমকে মুসলিম গোরস্থানে চির নিবরিশাল প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক

এসএম জাকির হোসেনের মায়ের ইন্তেকালদ্রায় শায়িত করা হয়েছে। আগামী সোমবার বাদ জোহর মরহুমার রুহের মাগফেরাত কামনায় পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া-মোনাজাতের আয়োজন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বার্ধক্যজনিত রোগে দীর্ঘদিন অসুস্থ ছিলেন খালেদা বেগম। সম্প্রতি তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয় তাঁর।