ঢাকা ০৫:৪২ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শতভাগ কার্যক্রম শুরু করবে বরিশাল হিসাব নিয়ন্ত্রক কার্যালয়

এ সপ্তাহের মধ্যেই প্রায় শতভাগ কার্যক্রম শুরু করবে বরিশাল বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক’র কার্যালয় (হিসাব ভবন)।
হিসাব নিয়ন্ত্রক কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নগরীর ফজলুল হক এভিনিউ সড়কে বিভাগের ৬ জেলার প্রায় সকল প্রকার হিসাব নিয়ন্ত্রক’র অফিসিয়াল কার্যক্রম এ সপ্তাহের মধ্যে শুরু করতে যাচ্ছে ডিভিশনাল কট্রোলার অব একাউন্টস কার্যালয় (হিসাব ভবন)।

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরো জানায়, ৪তলা বিশিষ্ট ডিভিশনাল কট্রোলার অব একাউন্টস-এর কার্যালয় প্রকল্পটি প্রায় ৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা শুরু হয়। বিগত ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি  মাসের প্রথম দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক’র কার্যালয় প্রকল্প নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

বর্তমান সরকারের নিজস্ব উন্নয়ন তহবিল (জিওবি)-এর অর্থ্যায়নে এ ডিভিশনাল কট্রোলার অব একাউন্টস-এর কার্যালয় (হিসাব ভবন) নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নে সহযোগিতা করেছেন জেলা গণপূর্ত বিভাগ। ইতিমধ্যেই বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক’র কার্যালয় ভবনের সকল প্রকার কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

ধীরে ধীরে কার্যালয়ের প্রি-অডিট ব্যবস্থা শক্তিশালী, চলমান সরকারী অর্থ ব্যবস্থাপনায় গতিশীলতা বজায় রাখা ও হিসাব ব্যবস্থা ডিজিটালাইজড-এর মাধ্যমে সেবার মান আরো ত্বরান্বিত করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে একাধিক অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কর্মরত কর্মচারীদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, বর্তমান দেশ আজ ডিজিটাল যুগ পেড়িয়ে, স্মার্ট যুগে পা রাখছে।

যে কারণে দেশের প্রায় সকল নাগরিক বিভিন্ন আধুনিক সুবিধা গ্রহণ করতে পারছেন। এরই ধারাবাহিকতায় অন-লাইনে বেতন নির্ধারণ, বেতন বিল উত্তোলন, ভ্রমণ ভাতা বিল পরিচালন ও উন্নয়নের অন্যান্য যাবতীয় বিল পাশ করতে পারবে এ ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস কার্যালয় থেকে।

কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আরো জানান, বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক কার্যালয়টি (হিসাব ভবন) তার নিজস্ব ভবনে কার্যক্রম শুরু করায় অচিরেই অন-লাইনের মাধ্যমে অবসর প্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পেনশন নির্ধারণ, মাসিক পেনশন, আনুতোষিক প্রদান পেনশন ও পুনঃ ভরন বিলসহ সকল প্রকার পেনশন সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম সুবিধা ভোগ করা সম্ভব হবে।

এ বিষয়ে জেলা গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কামরুল হাসান বলেন, বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক-এর কার্যালয় ভবন নির্মাণ প্রকল্পটি দ্রুতগতিতে সম্পন্ন করে ইতিমধ্যে প্রত্যাশী সংস্থাকে হস্তান্তর করা হয়েছে। আমার জানামতে, প্রত্যাশী সংস্থা বর্তমানে কার্যালয় ভবনটিতে তাদের সব ধরনের কার্যক্রম শুরু করেছেন।

এ প্রসঙ্গে আলাপকালে বরিশাল ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস কর্মকর্তা মোঃ এ কে আজাদ খান বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে বর্তমান সরকার প্রধান শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় নবনির্মিত বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক-এর নিজস্ব কার্যালয়ে তার কার্যক্রম শুরু করতে স্বক্ষম হয়েছে।

একইসাথে ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস নিজস্ব ভবনটি হাতে পাওয়ার মাধ্যমে বরিশালবাসীর আরো একটি স্বপ্ন বাস্তাবায়ন হলো।

তিনি আরো বলেন, নিজস্ব কার্যালয় ভবনে ইলেক্ট্রনিক্স ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি)-এর আওতায় শতভাগ পেনশন ভোগীদের পেনশন প্রদান, পেনশন প্রদান সংক্রান্ত সকল সেবাসমূহ সহজীকরণ, বেতন-ভাতা ও ভবিষ্য তহবিল সম্পর্কিত সেবারমান আরো বেশি উন্নীত করা সম্ভব হবে। মুলত এ কার্যালয়টি বিভাগের সরকারি সকল অফিসের বাজেটের বিপরীতে সমূদয় খরচ পূর্ব নিরীক্ষাসহ হিসাব সংরক্ষণ করে এবং উপযোজন হিসাব প্রস্তুত করে।

ট্যাগ :

দাকোপের বাজুয়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

শতভাগ কার্যক্রম শুরু করবে বরিশাল হিসাব নিয়ন্ত্রক কার্যালয়

আপডেট সময় : ১২:২৯:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৮ জুন ২০২৩

এ সপ্তাহের মধ্যেই প্রায় শতভাগ কার্যক্রম শুরু করবে বরিশাল বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক’র কার্যালয় (হিসাব ভবন)।
হিসাব নিয়ন্ত্রক কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নগরীর ফজলুল হক এভিনিউ সড়কে বিভাগের ৬ জেলার প্রায় সকল প্রকার হিসাব নিয়ন্ত্রক’র অফিসিয়াল কার্যক্রম এ সপ্তাহের মধ্যে শুরু করতে যাচ্ছে ডিভিশনাল কট্রোলার অব একাউন্টস কার্যালয় (হিসাব ভবন)।

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরো জানায়, ৪তলা বিশিষ্ট ডিভিশনাল কট্রোলার অব একাউন্টস-এর কার্যালয় প্রকল্পটি প্রায় ৬ কোটি ৮০ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মাণ করা শুরু হয়। বিগত ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি  মাসের প্রথম দিকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক’র কার্যালয় প্রকল্প নির্মাণের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

বর্তমান সরকারের নিজস্ব উন্নয়ন তহবিল (জিওবি)-এর অর্থ্যায়নে এ ডিভিশনাল কট্রোলার অব একাউন্টস-এর কার্যালয় (হিসাব ভবন) নির্মাণ প্রকল্প বাস্তবায়নে সহযোগিতা করেছেন জেলা গণপূর্ত বিভাগ। ইতিমধ্যেই বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক’র কার্যালয় ভবনের সকল প্রকার কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে।

ধীরে ধীরে কার্যালয়ের প্রি-অডিট ব্যবস্থা শক্তিশালী, চলমান সরকারী অর্থ ব্যবস্থাপনায় গতিশীলতা বজায় রাখা ও হিসাব ব্যবস্থা ডিজিটালাইজড-এর মাধ্যমে সেবার মান আরো ত্বরান্বিত করা হচ্ছে।
এ বিষয়ে একাধিক অবসরপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কর্মরত কর্মচারীদের সাথে আলাপকালে তারা জানান, বর্তমান দেশ আজ ডিজিটাল যুগ পেড়িয়ে, স্মার্ট যুগে পা রাখছে।

যে কারণে দেশের প্রায় সকল নাগরিক বিভিন্ন আধুনিক সুবিধা গ্রহণ করতে পারছেন। এরই ধারাবাহিকতায় অন-লাইনে বেতন নির্ধারণ, বেতন বিল উত্তোলন, ভ্রমণ ভাতা বিল পরিচালন ও উন্নয়নের অন্যান্য যাবতীয় বিল পাশ করতে পারবে এ ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস কার্যালয় থেকে।

কর্মকর্তা-কর্মচারীরা আরো জানান, বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক কার্যালয়টি (হিসাব ভবন) তার নিজস্ব ভবনে কার্যক্রম শুরু করায় অচিরেই অন-লাইনের মাধ্যমে অবসর প্রাপ্ত কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পেনশন নির্ধারণ, মাসিক পেনশন, আনুতোষিক প্রদান পেনশন ও পুনঃ ভরন বিলসহ সকল প্রকার পেনশন সংক্রান্ত যাবতীয় কার্যক্রম সুবিধা ভোগ করা সম্ভব হবে।

এ বিষয়ে জেলা গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. কামরুল হাসান বলেন, বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক-এর কার্যালয় ভবন নির্মাণ প্রকল্পটি দ্রুতগতিতে সম্পন্ন করে ইতিমধ্যে প্রত্যাশী সংস্থাকে হস্তান্তর করা হয়েছে। আমার জানামতে, প্রত্যাশী সংস্থা বর্তমানে কার্যালয় ভবনটিতে তাদের সব ধরনের কার্যক্রম শুরু করেছেন।

এ প্রসঙ্গে আলাপকালে বরিশাল ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস কর্মকর্তা মোঃ এ কে আজাদ খান বলেন, দ্রুততম সময়ের মধ্যে বর্তমান সরকার প্রধান শেখ হাসিনার ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় নবনির্মিত বিভাগীয় হিসাব নিয়ন্ত্রক-এর নিজস্ব কার্যালয়ে তার কার্যক্রম শুরু করতে স্বক্ষম হয়েছে।

একইসাথে ডিভিশনাল কন্ট্রোলার অব একাউন্টস নিজস্ব ভবনটি হাতে পাওয়ার মাধ্যমে বরিশালবাসীর আরো একটি স্বপ্ন বাস্তাবায়ন হলো।

তিনি আরো বলেন, নিজস্ব কার্যালয় ভবনে ইলেক্ট্রনিক্স ফান্ড ট্রান্সফার (ইএফটি)-এর আওতায় শতভাগ পেনশন ভোগীদের পেনশন প্রদান, পেনশন প্রদান সংক্রান্ত সকল সেবাসমূহ সহজীকরণ, বেতন-ভাতা ও ভবিষ্য তহবিল সম্পর্কিত সেবারমান আরো বেশি উন্নীত করা সম্ভব হবে। মুলত এ কার্যালয়টি বিভাগের সরকারি সকল অফিসের বাজেটের বিপরীতে সমূদয় খরচ পূর্ব নিরীক্ষাসহ হিসাব সংরক্ষণ করে এবং উপযোজন হিসাব প্রস্তুত করে।