ঢাকা ০৮:৩৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মুলাদীতে চার বছরের শিশুকে ধর্ষণ

বরিশালের মুলাদীতে চকলেট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ঘরে নিয়ে ৪ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করেছে লম্পট দোকানদার। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার কাজিরচর ইউনিয়নের উত্তর কাজিরচর (জালিয়াকান্দি) গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

উত্তর কাজিরচর গ্রামের আলতাফ সরদারের লম্পট ছেলে স্থানীয় দোকান মালিক মাসুম সরদার (২৬) শিশুটিকে ধর্ষণ করেছে বলে জানিয়েছেন শিশুর বাবা। ধর্ষনের শিকার শিশুটিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) নেওয়া হয়েছে। 

শিশুর বাবা জানান, ‘শনিবার সকালে আমি পার্শ্ববর্তী এক বাড়িতে আলোচনা সভা করতে যাই। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আমার মেয়ে বাসা থেকে টাকা নিয়ে কিছু কেনার জন্য মাসুম সরদারের দোকানে যায়।

ওই সময় দোকানে কেউ না থাকায় মাসুম আমার মেয়েকে চকলেট দেওয়ার কথা বলে দোকানের পিছনে তার বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করে। মেয়েটির ডাকচিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজন ছুটে গেলে মাসুম পালিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে মুলাদী হাসপাতালে নিয়ে যাই।

সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।’ মুলাদী হাসপাতালের চিকিৎসক জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, ‘শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। ধর্ষণে শিশুটির পায়ুপথ ও প্রসাবের রাস্তা এক হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।’

স্থানীয়রা জানান, দোকানদার মাসুম নারী লোভী লম্পট। তার দোকানে ফ্লেক্সিলোড করতে আসা নারীদের মোবাইল ফোন দিয়ে উত্ত্যক্ত করে। শনিবার শিশুটিকে ধর্ষণ করে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে। মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং শিশু ধর্ষনের ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যহত রয়েছে।’  

ট্যাগ :

খুলনার দাকোপে ভূমিসেবা সপ্তাহ উদযাপন হয়েছে

মুলাদীতে চার বছরের শিশুকে ধর্ষণ

আপডেট সময় : ০৯:২২:৪৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৭ জুন ২০২৩

বরিশালের মুলাদীতে চকলেট খাওয়ানোর লোভ দেখিয়ে ঘরে নিয়ে ৪ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করেছে লম্পট দোকানদার। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার কাজিরচর ইউনিয়নের উত্তর কাজিরচর (জালিয়াকান্দি) গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

উত্তর কাজিরচর গ্রামের আলতাফ সরদারের লম্পট ছেলে স্থানীয় দোকান মালিক মাসুম সরদার (২৬) শিশুটিকে ধর্ষণ করেছে বলে জানিয়েছেন শিশুর বাবা। ধর্ষনের শিকার শিশুটিকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) নেওয়া হয়েছে। 

শিশুর বাবা জানান, ‘শনিবার সকালে আমি পার্শ্ববর্তী এক বাড়িতে আলোচনা সভা করতে যাই। সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আমার মেয়ে বাসা থেকে টাকা নিয়ে কিছু কেনার জন্য মাসুম সরদারের দোকানে যায়।

ওই সময় দোকানে কেউ না থাকায় মাসুম আমার মেয়েকে চকলেট দেওয়ার কথা বলে দোকানের পিছনে তার বাসায় নিয়ে ধর্ষণ করে। মেয়েটির ডাকচিৎকারে পার্শ্ববর্তী বাড়ির লোকজন ছুটে গেলে মাসুম পালিয়ে যায়। সংবাদ পেয়ে মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে মুলাদী হাসপাতালে নিয়ে যাই।

সেখানে অবস্থার অবনতি হলে চিকিৎসক বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।’ মুলাদী হাসপাতালের চিকিৎসক জান্নাতুল ফেরদৌস বলেন, ‘শিশুটির অবস্থা আশঙ্কাজনক। ধর্ষণে শিশুটির পায়ুপথ ও প্রসাবের রাস্তা এক হয়ে যাওয়ার উপক্রম হয়েছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য ওয়ান স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে পাঠানো হয়েছে।’

স্থানীয়রা জানান, দোকানদার মাসুম নারী লোভী লম্পট। তার দোকানে ফ্লেক্সিলোড করতে আসা নারীদের মোবাইল ফোন দিয়ে উত্ত্যক্ত করে। শনিবার শিশুটিকে ধর্ষণ করে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিয়েছে। মুলাদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহাবুবুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এবং শিশু ধর্ষনের ঘটনায় অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করতে অভিযান অব্যহত রয়েছে।’