ঢাকা ১০:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বরিশালে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে ইলিশ!

  • স্টাফ রিপোর্টার
  • আপডেট সময় : ১২:১২:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ অগাস্ট ২০২৩
  • ৭১ খবরটি দেখা হয়েছে

নিষেধাজ্ঞা শেষে গত কয়েকদিন ধরে বরিশাল নগরীর পোর্ট রোড পাইকারী মৎস বন্দরে আসতে শুরু করেছে ইলিশ। তবে এসব ইলিশ এখন সাধরন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে। অভিযোগ রয়েছে, অদৃশ্য কারণে প্রতিবছরই ইলিশের দাম নিয়ে চলে কারসাজি! তবে ইলিশ ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটকে দুষছেন অনেকে।

বরিশালের বিভিন্ন নদ-নদী ইলিশ কম দামে কিনতে না পারার আক্ষেপ এখন গোটা বরিশালবাসীর মাঝে। ফারুক হোসেন নামে এক ক্রেতা বলেন, আগে যে ইলিশের কেজি ছিলো ৮০০টাকা এখন সেগুলো চাচ্ছে দুই হাজার টাকা। যা সত্যি খুবই দুঃখজনক।

মনিরা বেগম নামে এক বেসরকারী হাসপাতালের কর্মচারী বলেন, ইলিশের যে দাম তাতে আমাদের পক্ষে কোনভাবেই ইলিশ কেনা সম্ভব না। অনেক মানুষ আছে যে সর্বশেষ কবে ইলিশ খেয়েছে সেটিই ভুলে গেছে। সব জিনিসের দাম বাড়তেছে কিন্তু আমাদের বেতনতো বাড়তেছে না। কারা ইলিশের দাম বাড়িয়ে যাচ্ছে সরকারের কাছে আবেদন বিষয়টি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার।

শহিদুল ইসলাম নামে এক অবসারপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা বলেন, আগের দিনের মতো সেই ইলিশের সাদও নেই কিন্তু দাম প্রচুর। আমরা বরিশালবাসী ইলিশের দাম এমন বাড়তি চাই না। আমাদের বরিশালের ইলিশ আমরা ন্যায্যমূল্যে কিনতে চাই।

এদিকে মৎস ব্যবসায়ীদের দাবী নদ-নদীতে তুলনামূলকভাবে ইলিশ না পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জেলেদের মাছ ধরার খরচ ও চাহিদা বাড়ায় ইলিশের দাম বেড়েছে। 

খালেক হোসেন নামে এক পায়কারী ব্যবসায়ী বলেন, আগের মতো ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়া জ্বালানী খরচ বৃদ্ধিসহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির কারণে ইলিশ আগের থেকে বেশি দামে আমাদের কিনতে হচ্ছে তাই আমরাও সেই অনুযায়ী বিক্রি করছি।

এ ব্যাপারে বরিশাল জেলা পাইকারী মৎস আড়ত সমিতির অফিসের গিয়ে তাদের কাউকে না পাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। অন্যদিকে ইলিশের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকার দ্রুত কোন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে প্রত্যাশা বরিশালবাসীর।

ট্যাগ :

খুলনার দাকোপে ভূমিসেবা সপ্তাহ উদযাপন হয়েছে

বরিশালে চড়া দামে বিক্রি হচ্ছে ইলিশ!

আপডেট সময় : ১২:১২:৩৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৬ অগাস্ট ২০২৩

নিষেধাজ্ঞা শেষে গত কয়েকদিন ধরে বরিশাল নগরীর পোর্ট রোড পাইকারী মৎস বন্দরে আসতে শুরু করেছে ইলিশ। তবে এসব ইলিশ এখন সাধরন মানুষের ক্রয় ক্ষমতার বাহিরে। অভিযোগ রয়েছে, অদৃশ্য কারণে প্রতিবছরই ইলিশের দাম নিয়ে চলে কারসাজি! তবে ইলিশ ব্যবসায়ীদের সিন্ডিকেটকে দুষছেন অনেকে।

বরিশালের বিভিন্ন নদ-নদী ইলিশ কম দামে কিনতে না পারার আক্ষেপ এখন গোটা বরিশালবাসীর মাঝে। ফারুক হোসেন নামে এক ক্রেতা বলেন, আগে যে ইলিশের কেজি ছিলো ৮০০টাকা এখন সেগুলো চাচ্ছে দুই হাজার টাকা। যা সত্যি খুবই দুঃখজনক।

মনিরা বেগম নামে এক বেসরকারী হাসপাতালের কর্মচারী বলেন, ইলিশের যে দাম তাতে আমাদের পক্ষে কোনভাবেই ইলিশ কেনা সম্ভব না। অনেক মানুষ আছে যে সর্বশেষ কবে ইলিশ খেয়েছে সেটিই ভুলে গেছে। সব জিনিসের দাম বাড়তেছে কিন্তু আমাদের বেতনতো বাড়তেছে না। কারা ইলিশের দাম বাড়িয়ে যাচ্ছে সরকারের কাছে আবেদন বিষয়টি খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার।

শহিদুল ইসলাম নামে এক অবসারপ্রাপ্ত সরকারী কর্মকর্তা বলেন, আগের দিনের মতো সেই ইলিশের সাদও নেই কিন্তু দাম প্রচুর। আমরা বরিশালবাসী ইলিশের দাম এমন বাড়তি চাই না। আমাদের বরিশালের ইলিশ আমরা ন্যায্যমূল্যে কিনতে চাই।

এদিকে মৎস ব্যবসায়ীদের দাবী নদ-নদীতে তুলনামূলকভাবে ইলিশ না পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে জেলেদের মাছ ধরার খরচ ও চাহিদা বাড়ায় ইলিশের দাম বেড়েছে। 

খালেক হোসেন নামে এক পায়কারী ব্যবসায়ী বলেন, আগের মতো ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে না। এছাড়া জ্বালানী খরচ বৃদ্ধিসহ দ্রব্যমূল্যের উর্ধগতির কারণে ইলিশ আগের থেকে বেশি দামে আমাদের কিনতে হচ্ছে তাই আমরাও সেই অনুযায়ী বিক্রি করছি।

এ ব্যাপারে বরিশাল জেলা পাইকারী মৎস আড়ত সমিতির অফিসের গিয়ে তাদের কাউকে না পাওয়ায় তাদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। অন্যদিকে ইলিশের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকার দ্রুত কোন কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলে প্রত্যাশা বরিশালবাসীর।