ঢাকা ০৬:৩৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ট্রলার চাপায় শিক্ষকের মৃত্যু

পিরোজপুরের নাজিরপুরের ট্রলার চাপায় বিনয় ভুষন মজমুদার (৬২) নামের এক অবসর প্রাপ্ত স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলার দেউলবাড়ি দোবরা ইউনিয়নের পদ্মাডুবি এলাকার মনোহরপুর গ্রামের মৃত্যু ক্ষিরোদ চন্দ্র মজুমদারের ছেলে। তিনি উপজেলার মনোহরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। এ ঘটনায় সোমবার (২৯ মে) দুুপুরে নিহত স্কুল শিক্ষকের ছেলে রাজীব মজুমদার বাদী হয়ে নাজিরপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। আর ঘটনাটি ঘটেছে গত রবিবার (২৮ মে) রাত ৯টার দিকে স্থানীয় মনোহরপুর স্কুল সংলগ্ন ঘরামী বাড়ির পূর্বপাশের খালে।
স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, ওই রাতের ৯ টার দিকে ওই শিক্ষক তাদের নিজস্ব একটি ট্রলার চালিয়ে তার ছোট ভাই সান্টু মজুমদারকে নিয়ে মনোহরপুর বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে ট্রলার নিয়ে আসা একই এলাকার আয়নালী মৃধার ছেলে কাঁচামাল বিক্রেতা ইউসুফ মৃধা ওই শিক্ষকের ট্রলারটি চাপা দেন। এতে ওই শিক্ষকের ট্রলারটি উল্টে তিনি ও তার ছোট ভাই ট্রলারের নিচে পড়েন। ছোট ভাই সাঁতরে উঠলেও কিছু সময় পর ওই শিক্ষক ভেসে উঠেন। এ সময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চাপা দেয়া ট্রলারে করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক
তাকে মৃত্যু বলে ঘোষনা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মো. মশিউর রহমান জানান, ওই শিক্ষককে মৃত্যু অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিলো।

নাজিরপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির জানান, এ ঘটনায় ওই শিক্ষকের ছেলে বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে। ঘাতক ট্রলারের চালককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা
চলছে।

ট্যাগ :

দাকোপের বাজুয়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

ট্রলার চাপায় শিক্ষকের মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৪:০৪:৩৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৩০ মে ২০২৩

পিরোজপুরের নাজিরপুরের ট্রলার চাপায় বিনয় ভুষন মজমুদার (৬২) নামের এক অবসর প্রাপ্ত স্কুল শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলার দেউলবাড়ি দোবরা ইউনিয়নের পদ্মাডুবি এলাকার মনোহরপুর গ্রামের মৃত্যু ক্ষিরোদ চন্দ্র মজুমদারের ছেলে। তিনি উপজেলার মনোহরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। এ ঘটনায় সোমবার (২৯ মে) দুুপুরে নিহত স্কুল শিক্ষকের ছেলে রাজীব মজুমদার বাদী হয়ে নাজিরপুর থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন। আর ঘটনাটি ঘটেছে গত রবিবার (২৮ মে) রাত ৯টার দিকে স্থানীয় মনোহরপুর স্কুল সংলগ্ন ঘরামী বাড়ির পূর্বপাশের খালে।
স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী মো. জাহিদুল ইসলাম জানান, ওই রাতের ৯ টার দিকে ওই শিক্ষক তাদের নিজস্ব একটি ট্রলার চালিয়ে তার ছোট ভাই সান্টু মজুমদারকে নিয়ে মনোহরপুর বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। এ সময় বিপরীত দিক থেকে ট্রলার নিয়ে আসা একই এলাকার আয়নালী মৃধার ছেলে কাঁচামাল বিক্রেতা ইউসুফ মৃধা ওই শিক্ষকের ট্রলারটি চাপা দেন। এতে ওই শিক্ষকের ট্রলারটি উল্টে তিনি ও তার ছোট ভাই ট্রলারের নিচে পড়েন। ছোট ভাই সাঁতরে উঠলেও কিছু সময় পর ওই শিক্ষক ভেসে উঠেন। এ সময় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চাপা দেয়া ট্রলারে করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক
তাকে মৃত্যু বলে ঘোষনা করেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাক্তার মো. মশিউর রহমান জানান, ওই শিক্ষককে মৃত্যু অবস্থায় হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়েছিলো।

নাজিরপুর থানার অফিসার ইন চার্জ (ওসি) মো. হুমায়ুন কবির জানান, এ ঘটনায় ওই শিক্ষকের ছেলে বাদী হয়ে থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। মরদেহটি উদ্ধার করা হয়েছে। ঘাতক ট্রলারের চালককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা
চলছে।