ঢাকা ০৯:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

কুয়াকাটায় ঘুরতে গিয়ে পর্যটকের মৃত্যু

কুয়াকাটায় সমুদ্রে গোসল করতে নেমে দুই পর্যটক ডুবে যায়। এ সময় সৈকতে থাকা ট্যুরিস্ট পুলিশ তাৎক্ষণিক স্থানীয় লিটন ওয়াটার বাইকের সহায়তায় ওই দুই পর্যটককে উদ্ধার করেন। শনিবার (২৭ মে) বিকেলে কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ জোনের ইনচার্জ হাসনাইন পারভেজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ট্যুরিস্ট পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকা বসুন্ধরা থেকে আসা দুই বন্ধু মো. রাশিক (২৭) এবং মেজবাহ উদ্দিন তালু (২৮) গতকাল কুয়াকাটা ওয়েস্টার্ন হোটেলে উঠেন। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে সমুদ্রে গোসল করতে নামেন।

এ সময় তাদের মধ্যে এক বন্ধু সাতার না জানার কারণে ঢেউয়ের তোরে গভীরে নিয়ে যায়। পাশে থাকা অন্য বন্ধু উদ্ধার করতে গিয়ে দু’জনই ডুবে যেতে থাকে।

এ দৃশ্য সৈকতে থাকা কর্তব্যরত ট্যুরিস্ট পুলিশের নজরে আসলে তাৎক্ষণিকভাবে ওয়াটার বাইকের মাধ্যমে উদ্ধার করেন। পরে কুয়াকাটা ২০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি হাসপাতালে নিয়ে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

উদ্ধার কাজে সহায়তা করা লিটন বলেন, দুই পর্যটক ডুবে যাওয়ার সময় আমরা কাছেই ছিলাম। যার কারণে জীবিত উদ্ধার করতে পেরেছি। আমরা তাৎক্ষণিক না দেখলে, বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেত।

কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ জোনের ইনচার্জ হাসনাইন পারভেজ বলেন, সৈকতে থাকা আমাদের বক্স থেকে প্রতি ১০ মিনিট পরপর মাইকিং করে পর্যটকদের সতর্ক করা হয়। যারা সাঁতার জানে না, তাদেরকে গোসল করতে নিষেধ করা হয়।

নিষেধ করা সত্ত্বেও আগত পর্যটকরা গোসলে নামে। আমরা সব সময় সতর্ক অবস্থানে আছি। সাঁতার না জানা দুই পর্যটককে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তারা এখন সুস্থ আছেন।

ট্যাগ :

দাকোপের বাজুয়ায় মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

কুয়াকাটায় ঘুরতে গিয়ে পর্যটকের মৃত্যু

আপডেট সময় : ০৯:৩৩:১৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ মে ২০২৩

কুয়াকাটায় সমুদ্রে গোসল করতে নেমে দুই পর্যটক ডুবে যায়। এ সময় সৈকতে থাকা ট্যুরিস্ট পুলিশ তাৎক্ষণিক স্থানীয় লিটন ওয়াটার বাইকের সহায়তায় ওই দুই পর্যটককে উদ্ধার করেন। শনিবার (২৭ মে) বিকেলে কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ জোনের ইনচার্জ হাসনাইন পারভেজ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ট্যুরিস্ট পুলিশ জানিয়েছে, ঢাকা বসুন্ধরা থেকে আসা দুই বন্ধু মো. রাশিক (২৭) এবং মেজবাহ উদ্দিন তালু (২৮) গতকাল কুয়াকাটা ওয়েস্টার্ন হোটেলে উঠেন। শনিবার দুপুর ১২টার দিকে সমুদ্রে গোসল করতে নামেন।

এ সময় তাদের মধ্যে এক বন্ধু সাতার না জানার কারণে ঢেউয়ের তোরে গভীরে নিয়ে যায়। পাশে থাকা অন্য বন্ধু উদ্ধার করতে গিয়ে দু’জনই ডুবে যেতে থাকে।

এ দৃশ্য সৈকতে থাকা কর্তব্যরত ট্যুরিস্ট পুলিশের নজরে আসলে তাৎক্ষণিকভাবে ওয়াটার বাইকের মাধ্যমে উদ্ধার করেন। পরে কুয়াকাটা ২০ শয্যাবিশিষ্ট সরকারি হাসপাতালে নিয়ে তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়।

উদ্ধার কাজে সহায়তা করা লিটন বলেন, দুই পর্যটক ডুবে যাওয়ার সময় আমরা কাছেই ছিলাম। যার কারণে জীবিত উদ্ধার করতে পেরেছি। আমরা তাৎক্ষণিক না দেখলে, বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটে যেত।

কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ জোনের ইনচার্জ হাসনাইন পারভেজ বলেন, সৈকতে থাকা আমাদের বক্স থেকে প্রতি ১০ মিনিট পরপর মাইকিং করে পর্যটকদের সতর্ক করা হয়। যারা সাঁতার জানে না, তাদেরকে গোসল করতে নিষেধ করা হয়।

নিষেধ করা সত্ত্বেও আগত পর্যটকরা গোসলে নামে। আমরা সব সময় সতর্ক অবস্থানে আছি। সাঁতার না জানা দুই পর্যটককে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তারা এখন সুস্থ আছেন।